মোংলা বন্দরের আউটারবার ড্রেজিং প্রকল্পের কর্মকর্তারা মানছেন না সরকারের নিষেধাজ্ঞা

0
396

মোংলা প্রতিনিধি : সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে ঢুকে পরছে বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ। আবার বন্দরের উন্নয়ন মুলক কয়েকটি প্রজেক্টের লোকজনও অহরাহ রাজধানী শহর থেকে মোংলা আসছে এবং মোংলা থেকে পুনরায় ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ চলাচল করছে। গত এক সপ্তাহে প্রায় দুই শতাধিক লোক এসকল শহর থেকে মোংলা উপজেলার পৌর শহর ছাড়াও ইউনিয়নের ওয়ার্ড পর্যায় ঢুকে পরেছে। বিশেষ করে বন্দরের এসকল প্রজেক্টের কর্মকর্তাগন সরকারের নিষেধাজ্ঞাকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে অবাধে করছে চলাচল।
বন্দরের চায়না সিভিল এন্ড কন্সস্ট্রকশন ইঞ্জিনিয়ারিং কর্পোরেশন এর ঢাকা প্রতিনিধ সোহেলসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা নিয়ম নিতি না মেনে রাতের অন্ধকারে প্রজেক্টের কাজের কথা বলে ঢাকা হতে মোংলা প্রতি সপ্তাহে দুই বার আসা যাওয়া করে। ১৫ এপ্রিল রাতে মোংলায় অবস্থন করে, আবার তারা পুনরায় মোংলা থেকে ১৬ এপ্রিল সকাল ১১টায় আবার ঢাকায় চলে যান। এরকমও চলছে তাদের অবাধ যাতায়াত। উপজেলার অন্যান্য এলাকায় ঢাকা বা নারায়নগঞ্জ থেকে লোকজন আসলে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে আনতে সহায়তা করছেন প্রশাসনের সদস্যরা কিন্ত উপজেলা প্রশাসন বা মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মিদেরও কোন বিধি নিষেধ মানেন না আউটারবার ড্রেজিং প্রকল্পের কর্মকর্তাগন। আর এ সহায়তা করছেন মোংলা অফিসের দায়ীত্বে থাকা কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। তারা রাতের অন্ধকারে এরকম অবাধ যাতায়াতের সুযোগ করে দিচ্ছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ঢুকে পরছেন ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে আসা লোকজন। ইতি মধ্যে বেশ কয়েকজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের ব্যাবস্তাও করছে উপজেলা প্রশাসন।
এব্যাপারে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের নিরাপত্তা কর্মকর্তা লে. কমান্ডার নুর মোহাম্মাদ জানান, সরকারের নিশেধাজ্ঞা অমান্য করে ড্রেজিং প্রকল্পের কর্মকর্তা ঢাকা-নারায়গঞ্জ আসা-যাওয়া করছে তা জানাছিলনা। তবে এখানকার প্রমাসনের সাথে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করার আশ্বাস দেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here