যশোরে নতুন করে এবার অন্ত:সত্বা নারী, গার্মেন্টস কর্মী, স্বাস্থ্যকর্মীসহ ৯জন করোনায় শনাক্ত

0
390

বিশেষ প্রতিনিধি : যশোরে ৯জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে ৫জন নারী ও ৪জন পুরুষ। ৫জন নারীর মধ্যে একজন অন্ত:সত্বা, একজন গার্মেন্টসকর্মী। আর পুরুষদের মধ্যে ২জন স্বাস্থ্যকর্মী। যশোরের সিভিল সার্জন অফিস থেকে এতথ্য নিশ্চিত করেছে। আক্রান্তকারীদের মধ্যে যশোর সদর উপজেলার ২জন, ঝিকরগাছা উপজেলায় ৩জন ও শার্শায় ৩জন এবং (সাতক্ষীরার শ্যামনগরের বাসিন্দ), চৌগাছায় ১জন।
ঝিকরগাছা উপজেলায় ২ জন স্বাস্থ্য সহকারী সহ ৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার হাবিবুর রহমান বলেছেন, ২দিন আগে আক্রান্তদের রিপোর্ট সংগ্রহ করে যবিপ্রবির ল্যাবে পাঠানো হয়। শনিবার রিপোর্টে তাদের পজিটিভ এসেছে।
আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন, ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমটিইপিআই (নমুনা সংগ্রহকারী), ঝিকরগাছার মোবারকপুর গ্রামের এক বৃদ্ধা (৬০) ও বামনআলী গ্রামের গার্মেন্টসকর্মী এক যুবতী (২০)।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. রাশিদুল আলম জানিয়েছেন, গার্মেন্টসকর্মী ২২ এপ্রিল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে আসলে এমটিইপিআই (নমুনা সংগ্রহকারী) তার নমুনা সংগ্রহ করেছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, সে সময় হয়তো তিনি সংক্রমিত হতে পারেন। আক্রান্তরা সকলেই সুস্থ আছেন। তাদেরকে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনের মাধ্যমে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুমী মজুমদার জানিয়েছেন, আক্রান্তদের আইসোলশনে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।
চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা লুৎফুন্নাহার জানান, চৌগাছার পাশাপোল গ্রামের বানরহুদা গ্রামের অন্ত:সত্বা এক নারীর (২৮) শরীরে করোনার পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। কয়েকদিন আগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছিলেন। সেখান থেকে তিনি পালিয়ে যান। পরবর্তীতে খোঁজখবর নিয়ে তার নমুনা স্যাম্পল পাঠানো হয়। তার রিপোর্টে পজিটিভ এসেছে।
শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ইউসুফ আলী জানান, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরিতে কোভিড-১৯ পরীক্ষায় এই ৩ পজিটিভ আসে। শনিবার দুপুরে এই প্রতিবেদন পেয়েছেন। আক্রান্তরা হলো, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নারী চিকিৎসকের ছেলে, শার্শা উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমটি ল্যাবে কর্মরত ও ঝিকরগাছা উপজেলার নায়ড়া গ্রামের বাসিন্দা এক যুবক (৩৮) এবং ভারত ফেরত সীমান্তবর্তী রুদ্র গ্রামের এক ব্যক্তি। এর মধ্যে একজন হাসপাতালের আইসোলেশনে একজন রয়েছেন। এদিকে যশোর শহরের খড়কি এলাকায় এবং উপশহর এলাকার একজনের শরীরে করোনায় পজিটিভ এসেছে। তবে, যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আক্রান্ত দুইজনকে বক্ষব্যাধি ক্লিনিকে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। যশোরের সিভিল সার্জন শেখ আবু শাহীন সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জানান, যবিপ্রবির ৪১ জনের নমুনা স্যাম্পল পাঠানো হয়েছিল। এর মধ্যে ১২ জনের রিপোর্টে পজিটিভ এসেছে। তাদেরকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here