কেশবপুরে শিক্ষা বিভাগের নীতিমালা ও প্রজ্ঞাপনের বাস্তবায়ন হয়নি ॥ স্বীকৃতি প্রাপ্ত ১৯ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বেতন-বৈষম্যের শিকার ॥ ৭ম গ্রেডে বেতন প্রদানের দাবী

0
340

কেশবপুর (যশোর) ব্যুরো ॥ কেশবপুরে শিক্ষা বিভাগের নীতিমালা ও প্রজ্ঞাপনের বাস্তবায়ন হয়নি। স্বীকৃতি প্রাপ্ত ১৯ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বেতন-বৈষম্যের শিকার হয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। সরকারী প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ৭ম গ্রেড স্কেলে বেতন প্রদানের দাবীতে কেশবপুর উপজেলা নি¤œ-মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির কার্যালয়ে গতকাল সকালে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগি প্রধান শিক্ষক নেতৃবৃন্দ। স্বীকৃতি প্রাপ্ত ১৯ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠকালে কেশবপুর উপজেলা নিন্ম-মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষক-কর্মচারী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন বলেন, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ বে-সরকারী মাধ্যমিক-৩ বাংলাদেশ সচিবালয় ১২-০৬-২০১৮ তারিখের প্রজ্ঞাপনের আলোকে জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা ২০১৮-এ বে-সরকারী শিক্ষক কর্মচারীদের জন্য নিয়োগ যোগ্যতা ও চাকুরীতে প্রবেশের সময়-সীমা-সহ বেতন-স্কেল উল্লেখ রয়েছে। যেখানে শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক স্বীকৃতি প্রাপ্ত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক-এর বেতন কোর্ড ৭ম গ্রেড উল্লেখ রয়েছে। যার বেতন স্কেল ২৯ হাজার টাকা। কিন্তু সরকারের শিক্ষা বিভাগের নীতিমালা ও প্রজ্ঞাপন জারী থাকা সত্ত্বেও কেশবপুর উপজেলার শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক স্বীকৃতি প্রাপ্ত কেশবপুর মধুশিক্ষা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, রাজনগর বি এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়, দোরমুটিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পাঁজিয়া আদর্শ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, মনোহরনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সাগরদত্তকাটি এস এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আড়–য়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পল্লী উন্নয়ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, বুড়–লী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কোমরপোল মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, দোরমুটিয়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ত্রিমোহিনী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, মূলগ্রাম মাধ্যমিক বিদ্যালয়, গোবিন্দপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, টিটা-বাজিতপুর এম কে বি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, বাউশলা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, পি বি এইচ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হিজলডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও আটন্ডা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৯ জন প্রধান শিক্ষক তাদের প্রাপ্য ৭ম গ্রেড স্কেলের বেতন না পেয়ে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। অথচ বিগত ১৫-২০ বছর যাবৎ উক্ত বিদ্যালয় হতে শিক্ষার্থীরা এস এস সি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কৃতিত্বের সাথে উর্ত্তীর্ণ হয়ে শিক্ষার মান উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখে চলেছে। এব্যাপারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কেশবপুর উপজেলার ১৯ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের সরকারী প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ৭ম গ্রেড স্কেলে বেতন প্রদানের জন্য সরকারের শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here