চুকনগরে সীমানা ঘেষে অবৈধভাবে একাধিক গাছ রোপন করার বিভিন্ন সময়ে গাছ ও ডালপালা ভেঙ্গে পড়ে বসতবাড়ির ব্যাপক য় তি

0
164

চুকনগর প্রতিনিধি ॥ চুকনগরে সীমানা ঘেষে অবৈধভাবে একাধিক গাছ রোপন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে করে ঝড় বৃষ্টিসহ বিভিন্ন সময়ে গাছ পড়ে ও গাছের ডালপালা ভেঙ্গে পড়ে ব্যাপক য় তি হয়েছে। এ ঘটনায় গাছের ডালপালা কেটে নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হলে বিভিন্ন সময়ে হুমকী ধামকীসহ বিভিন্ন মামলায় ফাসিয়ে দেয়ার হুমকী দেয়া হচ্ছে। জানা যায়, ডুমুরিয়া উপজেলার উত্তর চাকুন্দিয়া গ্রামের আনোয়ার হোসেন গাজীর পুত্র সুলতান গাজী, আলতাফ গাজী ও হান্নান গাজী রাস্তার উত্তর প্রান্তে পূর্ব পাশ বরাবর এবং মৃত আইয়ুব আলী গাজীর পুত্র লুৎফার রহমান গাজী, রফিকুল ইসলাম গাজী ও আমিনুর রহমান গাজী পশ্চিম পাশ বরাবর বাড়ি নির্মান করে বসবাস করে আসছে। কিন্তু আইয়ুব আলী গাজীর পুত্ররা তাদের পূর্ব সীমানায় সরকারী বিধি অনুসারে গাছ লাগানোর নিরাপদ দূরত্ব অনুসরণ না করে একাধিক গাছ রোপন করেছে। গাছ গুলো ছোট থাকায় রোপনের প্রথম দিকে কোন তি না হলেও গাছ গুলো বড় হয়ে যাওয়ার পর আনোয়ার হোসেন গাজীর পুত্রদের বসতবাড়ির ঝড় বৃষ্টিসহ বিভিন্ন সময়ে গাছ পড়ে ও গাছের ডালপালা ভেঙ্গে পড়ে ব্যাপক য় তি হয়েছে। এর মধ্যে সুলতান গাজী চালে নারকেল পড়ে একাধিকবার টিন নষ্ট হয়েছে। ঝড়ের কারণে আব্দুল হান্নান গাজীর ঘরের চালের উপর গাছের ডাল ভেঙ্গে পড়ায় ঘরে ভিতরে থাকা তার স্ত্রী ও পুত্র সেদিন খাটের তলে আশ্রয় নিয়ে জীবন রা পায়। বিভিন্ন সময়ে ডাল ভেঙ্গে পড়ে একাধিকবার তার বাথরুমের চাল ভেঙ্গে পড়ে। এ ঘটনায় চাল মেরামত করার জন্য লুৎফার রহমান গাজী তিপূরণ দিতে চাইলেও আদৌ হান্নান গাজীকে কোন তিপূরণ দেয়া হয়নি। এছাড়া গাছ ও গাছের ডালপালা ভেঙ্গে পড়ে আলতাফ হোসেন গাজীর গেয়াল ঘরের পিলার, দেয়াল ও চালের চাপা দেয়ার গাতনী ভেঙ্গে পড়েছে। এতে করে বিভিন্ন সময়ে অনেক অর্থ দন্ড দিয়ে সে গুলো মেরামত বা সংস্কার করতে হয়েছে। এছাড়া কখন না জানি কি ভেঙ্গে চালের উপর পড়ে এই ভয়ে ঐ পরিবারটি একটি রাতও স্বাভাবিকভাবে ঘরের ভিতরে ঘুমাতে পারে না। বিষয়টি নিয়ে এলাকার আব্দুর রহিম গাজী, আব্দুর রশিদ গাজী, কালাম গাজী ও মাহাবুর রহমানকে জানানো হলে তারা শালিসী বিচারের মাধ্যমে আইয়ূব আলীর পুত্রদেরকে গাছ গুলো ডালপালা কেটে নেয়ার তাগিদ দেয়। কিন্তু রমজান মাসের কারণে তারা সময় প্রার্থনা করলে ঈদুর ফেতরের পরে গাছ কাটার সিদ্ধান্ত হয়। তবে ঈদের ২দিন আগে আমিনুর রহমান গাজী শালিসী উপস্থিত ব্যক্তিদের জানায় আমরা কাজের লোক পেয়েছি। আগামীকাল ডালপাড়া কেটে নেব। সেই মোতাবেক কাজের লোক ডালপালা কাটতে এসে গাছ বড় ও উচু হওয়ার কারণে ডাল কাটতে অস্বীকৃতি জানালে আমিনুর রহমান নিজেই রেগে গিয়ে গাছে ডাল কাটতে ওঠে। ডাল কাটার সময় তার একটি আঙ্গুল কেটে যায়। আর এই দোষ প্রতিপরে উপর বর্তিয়ে দিয়েই ান্ত হচ্ছে না। প্রতিনিয়ন হুমকী ধামকী ও মামলা হুমকী দিচ্ছে তারা। এব্যাপারে সুলতান গাজী বলেন, গাছের ডাল গুলো কেটে নেয়ার জন্য লুৎফার রহমানকে বলা হলে তিনি উল্টো তাদের ভয় দেখিয়ে বলেন আমার হাত অনেক লম্বা। বেশি কথা বললে মামলা দিয়ে একেবারে সোজা করে ফেলব। লুৎফার রহমান গাজী বলেন, ওদের চাপের মুখে তার ছোট ভাই আমিনুর রহমান গাছের ডাল কাটতে গিয়ে একটি আঙ্গুল নষ্ট হওয়ার উপক্রম প্রায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here