চুকনগরে ঘর মালিক কর্তৃক ভাড়াটিয়াকে হয়রানির অভিযোগ

0
186

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি,চুকনগর \ চুকনগরে ঘর মালিক কর্তৃক ভাড়াটিয়াকে হয়রানী করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনা সমাধান চেয়ে ভাড়াটিয়া বাজার ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সভাপতি ও সম্পাদক বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ে করেছে। ডুমুরিয়া উপজেলা মালতিয়া গ্রামের মৃত দিপক হালদারের পুত্র ও চুকনগর বাজারস্থ যতিন কাশেম রোডে “মা জুয়েলারী কারখানা” এর মালিক সুমন হালদার প্রাপ্ত অভিযোগে বলেন, তিনি ঘর মালিকের কাছ থেকে ঘরটি ভাড়া নিয়ে দীর্ঘ ১৯বছর যাবৎ শান্তিপূর্ণভাবে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। কিন্তু বিগত সময়ে বাজারের যতিন কাশেম রোডের জেলা পরিষদের সম্পত্তি উদ্ধারের ল্েয রাস্তার দুই পাশের দোকানঘর গুলি ভেঙে ফেলা হয়েছে। একারণে তার ঘরটি বর্তমানে রাস্তার সংলগ্ন হওয়ায় ঘর মালিক প নির্দয় আচরণ শুরু করেছে। তাছাড়া গত ৩০/১২/২০২০ইং তারিখে রোস্তমপুর গ্রামের মৃত আজিজুর মোড়লের পুত্র আব্দুল­াহ মোড়ল, খলিল মোড়ল ও তাহের মোড়লের সাথে চুক্তি পত্রের মেয়াদ শেষ হয়েছে। এরপর মালিক প তার সাথে মৌখিকভাবে নতুন ঘরভাড়া চুক্তিপত্রের অগ্রিম জামানত বাবদ ১ল টাকা ও মাসিক ঘর ভাড়া ২হাজার ৮শত টাকা নির্ধারণ করে এবং ঘর সংস্কারের জন্য অগ্রীম বাবদ ৪৫হাজার টাকা গ্রহন করে। মালিকের সাথে সু সম্পর্ক থাকায় লিখিতভাবে কোন চুক্তিপত্র করা হয়নি। এমতাবস্থায় ঘর মালিক এই ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতির (ব্যবসায়ীক মন্দা অবস্থা) মধ্যে জামানত ও ঘরভাড়া দ্বিগুন বৃদ্ধির জন্য চাপ সৃষ্টি করছে। ফলে এই মূহুর্তে করোনা পরিস্থিতির কারণে ব্যবসা ভাল না থাকায় দোকানঘর ভাড়া ও অগ্রীম জামানত বৃদ্ধি করা হলে তিনি ব্যবসায়ীকভাবে খুবই অসুবিধার ভিতরে পড়বেন। ভাড়াটিয়া সুমন হালদার বলেন, দীর্ঘ ১৯টি বছর আমি ঘরে আছি। এখন আমাকে জোরপূর্বক ঘর থেকে নামিয়ে দিতে চায় মালিক প। ঘর মালিক আব্দুল­াহ মোড়ল বলেন তার সাথে আমার চুক্তি মেয়াদ শেষ হয়েছে। সে আমার সাথে পূর্ণরায় কোন চুক্তি করেনি এবং নতুন করে জামানতও দেয়নি। বাজার ব্যবসায়ী কল্যান সমিতির সভাপতি প্রহাদ ব্রহ্ম বলেন, আমরা ঘরমালিক ও ভাড়াটিয়কে ডেকে যাতে উভয় প টিকে থাকতে পারে আমরা সেই ব্যবস্থা করব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here