দম ফেলার ফুরসত নেই শালিখার পাট চাষীদের

0
124

শালিখা (মাগুরা) প্রতিনিধি: একদিকে জীবন অন্যদিকে জীবিকা দুটি একটি অন্যটির পরিপূরক যা আবারো একবার অনুভূত হলো মাগুরার শালিখা উপজেলার আড়পাড়া ইউনিয়নের বরইচারা গ্রামের কৃষাণ-কৃষাণীর পাট গাছ থেকে আঁশ এড়ানো দেখে, কেউ গলা পানিতে নেমে টেনে আনছে পাটের জাগ, কেউ খালের পানিতে ধৌত করছে এড়ানো আঁশ গুলো, কেউবা আবার সেগুলো মাথায় করে বাড়িতে বয়ে নিয়ে যাচ্ছে। যেখানে অধিকাংশ মহিলারা দলবেঁধে মনের আনন্দে পাট গাছ থেকে এড়াচ্ছে পাটের আঁশ। দেখে মনে হচ্ছে দম ফেলার ফুরসত নেই তাদের। প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে যেন পাটের আঁশ এড়ানোই লিপ্ত তারা। ডিজিটাল পদ্ধতিতে রিবনারের মাধ্যমে রিবন রেটিং করে পাট জাগ দিলে বেশি লাভ হলেও অধিকাংশ কৃষকই পাট জাগ দিচ্ছে নদী-নালা, খাল,বিল, পুকুর বা বাড়ির নিকটে কোন ডুবাই যার ফলে পাটের রং নিয়ে দুশ্চিন্তায় অধিকাংশ পাট ব্যবসায়ীরা। উপজেলার গঙ্গারামপুর ইউনিয়নের পাট চাষী রিপনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, এ বছর তিন বিঘা জমিতে পাট বুনেছি যা গত বছরের তুলনায় কম হলেও ফলন বেশি হবে বলে আশা করছি। তবে পাটের দাম নিয়ে আশঙ্কা করছেন তারা। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে খরিপ-২ মৌসুমে এ বছর ৩৮৮৫ হেক্টর জমিতে পাট রোপণ করা হয়েছে যা গত বছরের তুলনায় অনেক কম তবে হেক্টর প্রতি ফলন বেশি হবে বলে ধারণা করছেন তারা। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ বছর ফলন বেশি হবে পাশাপাশি কৃষি অফিস থেকে রবি পাট-১ বীজ সরবরাহ করা হয়েছে পাশাপাশি কৃষকদের নানাবিধ পরামর্শ দানের কথাও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here