অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা আবার সোমবার থেকে: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

0
192

যশোর ডেস্ক : সোমবার থেকে ঢাকায় এবং ৭ আগস্ট থেকে সারাদেশে অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজের টিকাদান ফের শুরু হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। কোভ্যাক্সের আওতায় জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ১০ লাখ ডোজ টিকা আসার পর এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে অধিদপ্তরের অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির সদস্য সচিব মো. শামসুল হক বলেন, “আমরা আশা করি, আগামীকাল থেকে ঢাকার (ঢাকা সংলগ্ন) সব জেলা শহরে অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা যাদের বাদ পড়েছিল, তাদের দিতে পারব। আগামী ৭ আগস্ট থেকে আমরা সারাদেশে পূর্বের কেন্দ্রগুলোতে দ্বিতীয় ডোজ দিতে পারব।” “যারা প্রথম ডোজের ভ্যাকসিন যে কেন্দ্র থেকে নিয়েছিলেন, সেই কেন্দ্র থেকে দ্বিতীয় ডোজের ভ্যাকসিন নিতে পারবেন.” বলেন তিনি। ডা. শামসুল হক জানান, যারা অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন, দ্বিতীয় ডোজের জন্য মোবাইলে এসএমএস পেলেও নিতে পারেননি, তাদের নতুন এসএমএস লাগবে না। আগের এসএমএস দেখালেই হবে। সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি কোভিশিল্ড।সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি কোভিশিল্ড। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা দিয়েই গত ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশে গণটিকাদান শুরু হয়েছিল।
সেরামে তৈরি কোভিশিল্ড টিকার সাড়ে ৩ কোটি ডোজ কিনতে চুক্তি করেছিল সরকার। কিন্তু ৭০ লাখ ডোজ আসার পর ভারত রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিলে আর চালান আসেনি। এর বাইরে ভারত সরকার উপহার হিসেবে দিয়েছিল ওই টিকার ৩২ লাখ ডোজ। এর মধ্যে বাংলাদেশ চীন থেকে টিকা কেনা শুরু করেছে। কোভ্যাক্সের আওতায় ফাইজার, মডার্নার কোভিড টিকাও এসেছে। কিন্তু অ্যাস্ট্রাজেনেকার দুটি ডোজ যারা নিতে পারেননি, তারা পড়েন বিপাকে। কারণ তাদের অন্য টিকাও দেওয়া যাচ্ছিল না। অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া বর্তমানে ১৫ লাখ ২১ হাজার ৯৪৭ জনের বাকি রয়েছে বলে জানান ডা. শামসুল। জাপান থেকে আরও টিকা আসছে জানিয়ে তিনি তাদের সবাইর টিকা প্রাপ্তি নিয়ে আশ্বস্ত করেছেন। “জাপান সরকারের প থেকে কোভ্যাক্সের মাধ্যমে আমরা ১০ লাখ ২৬ হাজার ৩২০ ডোজ অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন হাতে পেয়েছি। আরও ৬ লাখ ডোজ আগামী ৩ অগাস্ট আমাদের হাতে এসে পৌঁছাবে।” আরও ৭ লাখ ৮১ হাজার অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা এল জাপান থেকে প্রথম চালানে যে ২ লাখ ৪৫ হাজার ডোজ এসেছে, সেটা ঢাকা শহর ও তার পাশপাশের সব জেলায় বিতরণ করা হয়েছে বলে জানান ডা. শামসুল। তিনি বলেন, আগামী ৭ থেকে ১২ অগাস্ট পর্যন্ত ইউনিয়ন পর্যায়ে, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশন এলাকায় জাতীয় টিকাদান কর্মসূচি চলবে। টিকা নিতে যারা যে এলাকায় নিবন্ধন করছেন, সেই এলাকায়ই টিকা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “অন্য এলাকা থেকে ভ্যাকসিন নিলে তার তথ্য সঠিকভাবে পাওয়া যাবে না। সনদ পেতে বিড়ম্বনায় পড়তে পারেন।”

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here