চলচ্চিত্রের বর্তমান বিষয় নিয়ে কিছু বলতে চাই না -ইলিয়াস কাঞ্চন

0
196

এন আই বুলবুল: ইলিয়াস কাঞ্চন। একাধারে অভিনেতা, প্রযোজক ও নির্মাতা। সর্বশেষ ২০১৮ সালে তার অভিনীত সিনেমা মুক্তি পেয়েছে বলে জানান। অভিনয়ের পাশাপাশি নয়টি সিনেমা তিনি প্রযোজনা করেছেন। এছাড়া ‘বাবা আমার বাবা’ ও ‘মায়ের স্বপ্ন’ শিরোনামের দুটি সিনেমার পরিচালকও তিনি। সেই সময়ে দুটি ছবি পাইরেসির কবলে পড়ে বলে জানান তিনি। যার কারনে নির্মাণ থেকে সরে আসেন। এখনকার ব্যস্ততা কি নিয়ে? উত্তরে এ অভিনেতা বলেন, অভিনেত্রী রোজিনার ‘ফিরে দেখা’ শিরোনামের একটি ছবিতে কাজ করেছি।
এছাড়া অনন্ত জলিলের একটি সিনেমা হাতে আছে। এর দুই দিনের শুটিং করেছি। এই ছবির আর কিছু আমার জানা নেই। চলচ্চিত্রে এখন বেশ অস্থির সময় পার করছে। এ নিয়ে আপনার মন্তব্য কী? ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, চলচ্চিত্রের বর্তমান বিষয় নিয়ে কিছু বলতে চাই না। যারা নেতৃত্ব দিচ্ছে এসব বিষয়ে তারা বলবে। শোবিজের বাইরে প্রায় ২৮ বছর এই অভিনেতা ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলন নিয়ে কাজ করছেন। এ নিয়েই তার এখন বেশি ব্যস্ততা। করোনার এই সময়েও বসে নেই বলে জানান তিনি। এ বিষয়ে তিনি বলেন, সারাদেশে আমাদের ১২০টির মতো শাখা আছে। এই সময়ে চালকরা যেন খাদ্য কষ্টে না থাকে সেটি নিয়ে কাজ করছি। পরিবহন সেক্টরের নেতারা চালকদের ভুল বোঝায় আমাদের সম্পর্কে। আমরা তাদের সেই ভুল ভাঙ্গার চেষ্টা করছি। করোনার মধ্যে চালকদের নানা ভাবে সহযোগিতা করছে আমাদের বিভিন্ন শাখার কর্মীরা। চালকরাও যেন সুন্দরভাবে ঈদ উদযাপন করতে পারে সেই ব্যবস্থা করেছি। গেল ঈদেও দু’শর বেশি মানুষ সড়কে প্রান হারালো। সড়ক দুর্ঘটনা কিন্তু কমছে না। এটিকে কিভাবে দেখছেন? কাঞ্চন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনা একেবারে কমছে না তা বলা ঠিক হবে না। আমি যখন আন্দোলন শুরু করি তখন দেশে মানুষের সংখ্যা ছিল ১০ কোটি। এখন ১৮ কোটি মানুষের দেশ। আমার আন্দোলনের শুরুর দিকে দুর্ঘটনার সংখ্যা আরও বেশি ছিল। তবে এটি সত্যি যতটুকু সড়ক দুর্ঘটনা কমে আসার কথা সেটি হচ্ছে না। এর একটি কারণ হলো সড়ক দুর্ঘটনা রোধের জন্য আমাদের প্রস্তাবগুলো এখন পর্যন্ত কোনো সরকারই ভালোভাবে নেয়নি। যদি সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে আমাদের প্রস্তাবগুলো নিয়ে কাজ করতো তাহলে আমরা আরো বেশি সফল হতাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here