সাতক্ষীরায় দুই সাংসদকে ফেসবুকে হত্যার হুমকি দেয়ার ঘটনায় বাবা ও ছেলে গ্রেপ্তার

0
176

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক এবং সাতক্ষীরা-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবিকে একটি ফেসবুক থেকে হত্যার হুমকি দেয়ার ঘটনায় বাবা ও ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা পুলিশ। বুধবার সকালে দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া বালিয়াডাঙ্গা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান। এর আগে এ ঘটনায় শহরেরর মুনজিতপুর এলাকার জিয়াউর বিন সেলিম নামে এক যুবক সাতক্ষীরা সদর থানায় ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-৩৪, তারিখ-১১-০৮-২০২১। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, দেবহাটা উপজেলার কুলিয়া বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের ঈমান আলীর ছেলে মনিরুল ইসলাম (৪৫) ও তার ছেলে ইফসুফ হোসেন (২১)। মনিরুল ইসলাম স্থানীয় একটি মসজিদের ঈমাম ও জামায়াত-শিবির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত এবং তার ছেলে ইউসুফ হোসেন মাদকাসক্ত বলে জানা গেছে। সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার জানান, “আজরায়িল জান নেই” নামক ফেসবুক আইডি থেকে গত ৮ আগষ্ট রোববার দুই সংসদ সদস্যকে মাথা কেটে দিতে পারলে কোটি টাকার পুরষ্কার ঘোষনা করা হবে পোষ্ট দেয়া হয়। পরবর্তীতে ওই আইডি বন্ধ করে একই প্রোফাইল পিকচার ঠিক রেখে ‘‘কালিমা মা’’ ফেসবুক আইডি খুলে আবারও একই ভাবে হুমকি দেয়া হয়। এ ঘটনায় জেলা ব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়। এক পর্যায়ে তার (পুলিশ সুপারের) সার্বিক তত্বাবধানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে জেলা গোয়েন্দা শাখার একটি চৌকসদল অপরাধিকে আইনের আওতায় আনার লক্ষ্যে কাজ শুরু করে এবং তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় মনিরুল ও তার ছেলে ইউসুফকে তাদের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে মোট ৮ টি মোবাইল ফোন, দুটি সিম কার্ড, তিনটি মেমোরি কার্ড, একটি ক্যামেরাযুক্ত ডিজিটাল ঘড়ি ও বেশ কিছু বই উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান, জিজ্ঞাসাবাদে তারা ফেসবুক আইডি দুটির মাধ্যমে দুই সংসদ সদস্যকে উক্ত পোষ্ট দেয়ার কথা স্বীকার করেছেন। তাদেরকে আদালতে মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। সংবাদ সম্মেলনে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) সজিব খান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইকবাল হোসেন, সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) শামসুল আল শামস প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here