চৌগাছায় অজ্ঞান পার্টির কবলে কৃষক

0
35

চৌগাছা (যশোর) প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছায় গরু কিনতে এসে অজ্ঞান পার্টির কবলে পড়ে সাইদুল ইসলাম (৫০) নামে এক কৃষকের এক দিন পর জ্ঞান ফিরেছে। তিনি ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার নাটিমা ইউনিয়নের উজ্জলপুর গ্রামের আবুল কাশেম তরফদারের ছেলে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, তাকে অজ্ঞান করার পর লুঙ্গির মাজার অংশে কেঁটে সেখানে গুঁজে রাখা টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা।
রবিবার দুপুরে উদ্ধারের পর তাকে বাস শ্রমিকরা তাঁকে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সোমবার বিকাল ৩টার দিকে তার কিছুটা জ্ঞান ফেরে। তিনি তার সন্তানকে চিনতে পারেন। এ রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত সোমবার বিকাল চারটা ১৫ মিনিটে তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।
শহিদুলের ছেলে সুজন হোসেন জানান, ‘আব্বা রবিবার দুপুরে গরু কেনার জন্য বাড়ি থেকে চৌগাছা আসেন। কিন্তু তিনি রাতেও বাড়ি না ফিরলে তার ফোনে কল দিয়ে পাচ্ছিলাম না। আমরা সম্ভাব্য সব জায়গায় খুঁজাখুঁজি করে তাকে না পাওয়ার এক পর্যায়ে সোমবার দুপুরে সামাজিক মাধ্যমে আব্বার ছবি দেখে স্থানীয়রা আমাদের জানালে চৌগাছা হাসপাতালে এসে আব্বাকে পাই।’
চৌগাছা বাস মালিক সমিতির সদস্য মধু মিয়া বলেন, রোববার আমাদের যশোর- ব-১৯০ নম্বর গাড়ি মহেশপুর থেকে চৌগাছায় আসে। চৌগাছায় আসার পর সব যাত্রী নেমে গেলেও তিনি নামছিলেন না। তখন চালক ও সহকারী বারবার ডাকাডাকি করেও তার সাড়া পাননি। পরে ধাক্কা দিলেও যখন তার ঘুম ভাঙেনি তখন তাঁরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোছাঃ লুৎফুন্নাহার বলেন, রবিবার অজ্ঞাত হিসেবে তাকে ভর্তি করা হয়। সোমবার বিকাল ৩টার দিকে তার ছেলে এসে তাকে শনাক্ত করেন। তিনি জানান, আমরা রেফার করতে চাইলেও তাঁর স্বজনরা এখানেই ভর্তি রেখেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here