যশোর বিমানবন্দরের স্টেনোটাইপিষ্ট শহিদুলসহ ৩ জনের নামে আর্থিক প্রতারনা মামলা

0
109

স্টাফ রিপোর্টার : ক্যাডেট ও উইং বাংলাদেশ বিমান বাহিনী একাডেমী যশোর অফিসের স্টেনো টাইপিস্ট শহিদুল ইসলাম (৩৫)সহ তিনজনের নামে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদর আমলী আদালত, যশোরে আর্থিক প্রতারনার মামলা হয়েছে। মামলার অন্য দুই আসামি হলেন, একই থানার গাব্বুনিয়া গ্রামের সোবহানের পুত্র আব্দুল করিম ও রাজধানী ঢাকার বাড্ডা শাখার উত্তরা ব্যাংক লি: এর গ্রাহক মাসুদ রানা। যশোর বিমান বন্দর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের খন্ডকালীন অফিস সহকারী জেসমিন নাহার মামলাটি করেছেন। তিনি বিমান বন্দর আবাসিক এলাকার ভাড়াটিয়া। তার স্থায়ী ঠিকানা রাজশাহী। রাজশাহী জেলার বাঘা থানার ছগরী গ্রামের আমিরুলের কন্যা তিনি। মামলা নং সি আর ৬৮৬/২১। আসামি শহিদুল ইসলাম পটুয়াখালী জেলার গলাচিপা থানার ফুলদিয়া গ্রামের নুরুল ইসলাম গাজীর পুত্র। বাদি তাহার মামলার বিবরনে বলেছেন, ২নং আসামি আব্দুল করিম জানায় সে বাংলাদেশ ব্যাংকে চাকুটি করে। সেখানে চাকুরি প্রদানের অঙ্গীকারে তাহার নিকট থেকে সাত লাখ টাকা গ্রহন করেছে। আসামিরা যোগসাজশে জনতা ব্যাংক লি: ঢকা দিলকুশা খাখার একাউন্ট নং ০১০০১৭৪১৯৭৭৬২ ও উত্তরা ব্যাংক লি: বাড্ডা শাখার একাউন্ট নং ১৬৯৩১১১০০০০২৮৫৫ এ ১ নং আসামির উপস্থিতিতে সকল টাকা লেনদেন হয়। বাদি যশোর এয়ারবেজ অগ্রনী ব্যাংক শাখার ০২০০০১২০৪৩৭১ একাউন্ট নম্বর থেকে চার লাখ টাকা প্রথম কিস্তি প্রদান করে। দই লাখ ৭০ হাজার টাকার দ্বিতীয় কিস্তি এবি ব্যাংক যশোর শাখার ৪২১৪২৫৯৫৭-৩ ডাব্লিউ একাউন্টে প্রদান করেন। পরবর্তীতে ত্রিশ হাজার টাকা বিকাশে ০১৭১৪১১০৩৬৮ মোবাইল ফোনে প্রদান করেন। ৪/১১/২০, ২০/০১/২১ এবং ২০/০২/২১ তারিখে এই লেনদেন হয়। বর্তমানে আসামিদের মোবাইল ফোন নম্বর বন্ধ। তবে কখনো কখনো তারা মোবাইল নম্বর খুললেও তাতে ফোন করলে রং নাম্বার বলে রেখে দেয়। একমাত্র সন্তানের ভবিষৎ চিন্তা করে বাদি তিন কিস্তিতে সাত লাখ টাকা প্রদান করে। বিজ্ঞ আদালত মামলাটির তদন্তভার দিয়েছেন পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই এর উপর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here