নব্য আওমীলীগার সেজে ট্রাক সিরিয়াল’র নামে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা– মোংলায় ট্রান্সপোর্ট ব্যাবসায়ীকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে হয়রানির অভিযোগ

0
150

মোংলা প্রতিনিধি : মোংলায় ট্রন্সেপোর্ট ব্যাবসায়ীকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সুনাম ুন্নসহ হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষ এক ব্যাবসীর বিরুদ্ধে। সংগঠনের নির্বাচনে সভাপতির পদ থেকে হেরে গিয়ে বিভিন্ন মাধ্যমে অপ-প্রচার চালাচ্ছে বলেও বহু অভিযোগ রয়েছে প্রতিপক্ষ ওই ব্যাবসায়ীর বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছে ট্রান্সেপোর্ট সংগঠনের বর্তমান সভাপতি ব্যাবসায়ী মাতুব্বর রানা আহাম্মেদ। এ নিয়ে সাধারণ সদস্যদের মাঝে চলছে ক্ষোভ ও উত্তেজনা।
উপজেলার দ্বিগরাজ বাজার এলাকায় মোংলা পোর্ট পৌরসভা ট্রাক বন্ধবাস্থ ও সরবরাহকারী বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ নামের একটি সংগঠন চলে আসছে বহু দিন থেকে। ওই সংগঠনের সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম নান্নু নামের ব্যাবসায়ী এ প্রতিষ্ঠানের নেতা হওয়ায় সংগঠনের নাম ভাঙ্গিয়ে নানা অপরাধ মুলক কর্মকান্ডে জড়িয়ে পড়ে। এ সকল কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করলে সংগঠনের সাধারন সদস্যদের মিথ্যা মামলা-হামলার অপবাদ দিয়ে জেল জরিমানাসহ নানাভাবে হয়রানী করতো বলে সদস্যদের অভিযোগ। ট্রান্সপোর্ট সংগঠনটি ট্রাক বন্ধবাস্ত ও সরবরাহকারী বহুমুখী সমিতির নিয়োম তিন বছর পর পর নির্বাচন দেয়া। কিন্ত সাবেক সভাপতি নব্য আওয়ামীলীগ সেজে তিনি তার ক্ষমতাবলে জোর পুর্বক নির্বাচন না দিয়ে ক্ষমতা ধরে রাখে। সংগঠনটির সাধারণ সদস্যরা সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম নান্নুর অত্যাচার আর নির্যাতনে অতিষ্ট হয়ে নির্বাচনের দাবী তোলে। পরে গত ১০ ফেব্রয়ারী ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনে ৭৬ ভোটের মধ্যে সাবেক সভাপতি পায় মাত্র দুই ভোট। ব্যাপক ভোটের ব্যাবধানে পরাজয় হয় রেজাউল করিম নান্নু। সভাপতি নির্বাচিত হয় সংগঠনটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মাতুব্বর রানা আহাম্মেদ। ওই নির্বাচনে হেরে গিয়ে বর্তমান সভাপতি মাতুব্বর রানা আহাম্মেদের বিরুদ্ধে শুরু করে অপ-প্রচার ও না ধরনের হয়রানী মুলক কর্মকান্ড। নাম প্রাকাশ না করার সর্তে সদস্যরা বলেন, সাবেক সভপতি থাকাকালীন বর্তমান সভাপতি রানা আহাম্মেদ ছিল ওই সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক। কিন্ত সাধারণ সদস্যদের জন্য উন্নয়ন মুলক কার্যক্রম সভাপতি নান্নু যা করার কথা সেটা না করে তিনি তার নিজের আখের গুছিয়েছে, নির্বাচনের পুর্বে সংগঠনের সভাপতি পদের নাম ভাঙ্গিয়ে লুটে নিয়েছে লক্ষ লক্ষ টাকা। কিন্ত তখন সাধারণ সদস্যদের পাশে ছিল সাংগঠনিক সম্পাদক রানা আহাম্মেদ। তাই তাকে সভাপতি নির্বাচিত করেছি সদস্যদের দুঃখ-কষ্ট দেখা ও বোঝার জন্য। কারন মোংলা শিল্পাঞ্চলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে বহু মালিকের অর্ধ কোটি টাকারও বেশী পন্য ট্রাক ও বিভিন্ন পরিবহনের মাধ্যমে বোঝাই দেশের জেলা উপজেলা শহরে পৌছে দিতে হয়। ওই পন্যগুলো যদি নষ্ট বা হারিয়ে যায় সেগুলোর দায়ভার বহন করতে হয় ট্রান্সপোর্ট মালিকদের। কিন্ত সে দিকে লক্ষ রাখতো না সাবেক সভাপতি।
সদস্যদের অভিযোগ, সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম নান্নু ছিল এক সময় মোংলা মাঝিমাল্লা সমিতির সাধারণ সম্পাদক, সেখান থেকে নানা অপরাধে বিতারিত হয়ে চলে আসেন ট্রন্সপোর্ট ব্যাবসায়। শুরু করেন তার পুর্বে সেই কার্যক্রম। ট্রন্সপোর্ট ব্যাবসার অন্তরালে তিনি নব্য আওয়ামীলীগ সেজে সাধারণ সদস্যদের কোন খবর না রেখে ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদেরও নাম ভাঙ্গিয়েও ট্রাক সিরয়িালের নামে ওই সকল শিল্প প্রতিষ্ঠান থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা বলেও অভিযোগ করেন অনেক সদস্যরা। এ ব্যাপারে সাবেক সভাপতির হাত থেকে প্রতিকার চায় সংগঠনটির সাধারণ সদস্যরা।
ভুক্তভোগী বর্তমান সভাপতি মাতুব্বর রানা আহাম্মেদ জানান, সাবেক সভাপতির সাথে সাংগঠনিক ভাবে দীর্ঘদিন যাবত শত্রুতা চলছে আমিসহ আমাদের সদস্যদের। নির্বাচনে হেরে গিয়ে সে বিভিন্ন ভাবে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা হয়রানি করার চেস্টা করে আসছে দীর্ঘদিন যাবত। তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে মিথ্যা মামলা, মাদক ও ব্যাবসায়ীক ক্ষতি করবে বলেও অপ-প্রচার চালাচ্ছে বলে জানায় সভাপতি মাতুব্বার রানা আহাম্মেদ।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সাবেক সভাপতি রেজাউল করিম নান্নু বলেন, সদস্যরা নির্বাচনের দাবী তুললে সঠিক নিয়োমে নির্বাচন দেয়া হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ মিথ্যা, যারা অভিযোগ তুলছে, তারাই সংগঠনের বহু ক্ষতি করেছে এবং সদস্যদের আগামী দিনের ভবিষ্যাত নষ্ট করছে। আমি কতটুটু ক্ষতি করেছি, সেটা তিন বছর পার হলেই সদস্যরা বুঝবে তাদের জন্য আমি কি করেছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here