এক দিনে ২৫৬ কোভিড রোগী শনাক্ত, মৃত্যু ৭

0
157

যশোর ডেস্ক : দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৫৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে; মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বুধবার সকাল পর্যন্ত আক্রান্ত নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত আক্রান্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৭০ হাজার ২৩৮ জনে, মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৭ হাজার ৮৮০ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে ২৪ ঘণ্টায় সেরে উঠেছেন ২৩৭ জন। তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ১৫ লাখ ৩৪ হাজার ৭৩ জন। আগের দিন মঙ্গলবার ২২৯ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছিল, মৃত্যু হয়েছিল ৩ জনের। সে হিসেবে গত এক দিনে শনাক্ত ও মৃত্যু দুটোই কিছুটা বেড়েছে। পাশাপাশি নমুনা পরীার বিপরীতে শনাক্ত রোগীর হার বেড়ে ১ দশমিক ৩১ শতাংশ হয়েছে, যা আগেরদিন ১ দশমিক ১৪ শতাংশ ছিল। গত এক দিনে শনাক্ত রোগীদের মধ্যে ১৯৪ জনই ঢাকা বিভাগের বাসিন্দা, যা দিনে মোট শনাক্তের অর্ধেকের বেশি। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৩৫টি জেলায় নতুন কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। পুরো ময়মনসিংহের বিভাগেই কারও মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েনি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত এক দিনে সারা দেশে মোট ১৯ হাজার ৫২৩টি নমুনা পরীা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীা হয়েছে ১ কোটি ৪ লাখ ৯ হাজার ১৫৮টি নমুনা। এ পর্যন্ত নমুনা পরীার বিবেচনায় শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ১৫ দশমিক ০৯ শতাংশ; মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৭ জনের মধ্যে ৫ জনের বয়স ছিল ৬১ বছরের বেশি এবং ২ জনের বয়স ছিল ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে।
তাদের মধ্যে ৩ জন ঢাকা বিভাগের, ১ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, ১ জন রাজশাহী বিভাগের, ১ জন খুলনা বিভাগের এবং ১ জন সিলেট বিভাগের বাসিন্দা ছিলেন। চারজন সরকারি হাসপাতালে হাসপাতালে এবং ৩ জন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ। গত ৩১ অগাস্ট তা ১৫ লাখ পেরিয়ে যায়। এর আগে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বছর ১৪ সেপ্টেম্বর তা ২৭ হাজার ছাড়িয়ে যায়। তার আগে ৫ অগাস্ট ও ১০ অগাস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারীর মধ্যে এক দিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা। বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যে ৫০ লাখ ১১ হাজার ছাড়িয়েছে। আর শনাক্ত হয়েছে ২৪ কোটি ৭৪ লাখের বেশি রোগী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here