মহম্মদপুরে ইউপি নির্বাচনে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা

0
109

মহম্মদপুর (মাগুরা) থেকে : মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলা জুড়ে বয়ছে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনী হাওয়া। প্রচার-পচারণায় ব্যস্ত উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। নৌকা প্রতিকের পাশাপাশি গনসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন সম্ভব্য স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীরাও। হালকা শীতকে উপেক্ষা করে যে যার মতো সাধারণ ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। বসে নেয় মেম্বর প্রার্থীরাও। আবার আলোচনা সমালোচনা থেকে পিছিয়ে নেয় সাধারণ ভোটাররাও, হাট-বাজারসহ গ্রাম মহল্লার চায়ের দোকানে তাদের মধ্যেও চলছে চুলছেড়া বিশ্লেষন। বাবুখালী, বিনোদপুর, দীঘা, রাজাপুর, বালিদিয়া, মহম্মদপুর, পলাশবাড়ীয়া এবং নহাটা এই আটটি ইউনিয়ন পরিষদ নিয়ে গঠিত মহম্মদপুর উপজেলা। প্রতিটি ইউনিয়নেই বয়ছে নির্বাচনী হাওয়া। আওয়ামী লীগের মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পাশাপাশি নির্বাচনের গণসংযোগে মাঠে নেমে পড়েছেন সম্ভব্য প্রার্থীরাও। বিভিন্ন ইউনিয়ন ঘুরে লোক মুখে শুনা যাই হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে প্রায় প্রতিটা ইউনিয়নে। নির্বাচন কমিশনারের ঘোষনা অনুযায়ী আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। ঘোষনার পরপরই সম্ভব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা যে যার আমল নামা নিয়ে দৌড়ঝাপ শুরু করেন কেন্দ্রীয় পর্যায়ে। দলীয় প্রতিকের আশায়। তাদের মধ্যে নৌকা প্রতিকের মনোনিত প্রার্থীরা হলেন- ১নং বাবুখালী ইউপি- মীর সাজ্জাদ আলী, ২নং বিনোদপুর ইউপি- শিকদার মিজানুর রহমান, ৩নং দীঘা ইউপি- খোকন মিয়া, ৪নং রাজাপুর ইউপি- মিজানুর রহমান বিশ^াস, ৫নং বালিদিয়া ইউপি- মফিজুর রহমান মিনা, ৬নং মহম্মদপুর ইউপি- রাবেয়া বেগম, ৭নং পলাশবাড়িয়া ইউপি- মোঃ আলাউদ্দীন এবং ৮নং নহাটা ইউপি- মোঃ আলী মিয়া। অন্যদিকে নৌকা প্রতিকের সাথে লড়াই করার জন্য প্রতিটি ইউনিয়নে একাধীক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থীরা জনসংযোগের মাঠে নেমে পড়েছেন। কার্তিক মাসের রোদ আর হালকা শীত উপেক্ষা করে যে যার মতো করে সাধারণ ভোটারদের দরজায় কড়া নেড়ে তাদের নানা কাজ কর্মের আমল নামা তুলে ধরে ভোট ও দোয়া প্রার্থনা করছেন। সাধারণ ভোটারাও প্রতিটি প্রার্থীর আমল নামা নিয়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় তুলছে ধান ক্ষেত, হাট-বাজার ও পাড়া মহল্লার চায়ের দোকানে বসে। উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো: তায়জুল ইসলাম জানান, প্রধান নির্বাচন কমিশন (সিইসি’র) নির্দেশ অনুযায়ী ২ নভেম্বর জমা এবং ৪ নভেম্বর মনোনয়নপত্র যাচাই বাচাই শেষ হয়েছে। ১১ নভেম্বর প্রত্যাহারের শেষ দিন এবং ১২ নভেম্বর প্রতিক বরাদ্দ। এরপর ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here