ডুমুরিয়ায় বিজয়ী প্রার্থীকে মারপিটের ঘটনায় গ্রেফতার-৯

0
103

ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি,ডুমুরিয়া : ডুমুরিয়ার সাহস ইউপি নির্বাচনে পরাজিত মেম্বর প্রার্থীর সহিংসতায় বিজয়ী প্রার্থীসহ তার ১০ জন কর্মী সমর্থক মারপিটের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বিজয়ী প্রার্থীর ভাই আতাউর রহমান বাদী হয়ে শুক্রবার রাতে পরাজিত প্রার্থী সহিদুল ইসলামকে প্রধান আসামীসহ তার সহযোগীরদের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। পুলিশ মামলার ৯জন আসামীকে গ্রেপ্তার করেছে। মামলার বিবরণ ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ডুমুরিয়া উপজেলার সাহস ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি ও বর্তমান ইউপি মেম্বর সিরাজুল ইসলাম সরদার গত ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে ব্যাপক ভোটের ব্যবধানে পুনরায় মেম্বর নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে তারই চাচাতো ভাই শহিদুল ইসলাম সরদার পরাজিত হন। ওই ঘটনার জের ধরে পরাজিত প্রার্থী ও তার ভাই কামরুল ইসলাম সরদারের নেতৃত্বে শুক্রবার সকালে বিজয়ী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের উপর হামলা করে।খবর পেয়ে সিরাজ মেম্বর ও তার অন্যান কর্মী-সমর্থকরা তাদের উদ্ধার করতে যায়। এ সময় শহিদুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা সিরাজ মেম্বর,তার সহোদর এক পা হারা শারীরিক প্রতিবদ্ধি আজহারুল ইসলাম(৪৫)সহ অন্তত ১০ জন কর্মী-সমর্থকদের উপর চাইনিজ কুড়াল,হাতুড়ী,লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্র-স্বস্ত্র নিয়ে হামলা করে আহত করে। আহতদের স্হানীয় লোকজন উদ্ধার করে ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্হ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্হলে যেয়ে মামলার প্রধান আসামী সহিদুল ইসলাম সরদার,সাহস এলাকার শাহাজান শেখ(৫০),মাসুম বিল্লাহ (২৪),মুজিবর রহমান(৩৫),সিরাজুল শেখ(৪৫),মাকসুদ মোল্যা(৪৫),আব্দুল কুদ্দুস(৫৫),কার্তিক দাস(৫৫)ও রাজু শেখ(২৯)কে আটক করে। মারপিটের ঘটনায় বিজয়ী প্রার্থী সিরাজ সরদারের ভাই আতাউর রহমান বাদী হয়ে ধৃত আসামীসহ ২০ জনের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাত নামা ১২/১৩ জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ ওবাইদুর রহমান জানান, মামলার ৯জন আসামীকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্যান আসামীদের গ্রেপ্তারে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here