কোভিড: এক দিনে ৫ মৃত্যু, শনাক্ত ২৪৪ জন

0
126

যশোর ডেস্ক : দেশে এক দিনে আরও ২৪৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে; মারা গেছেন ৫ জন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত শনাক্ত নতুন রোগীদের নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ৭৩ হাজার ৪৫৮ জনে। তাদের মধ্যে ২৭ হাজার ৯৩৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবে ২৪ ঘণ্টায় সেরে উঠেছেন ২৯৪ জন। তাদের নিয়ে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠলেন ১৫ লাখ ৩৭ হাজার ৫১৮ জন। এই তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮ হাজার ১ জন। অর্থাৎ, জানা হিসেবে এই সংখ্যক মানুষ এখন করোনাভাইরাস সংক্রমিত অবস্থায় রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তদের মধ্যে ১৭৯ জনই ঢাকা বিভাগের যা মোট আক্রান্তের তিন চতুর্থাংশ। দেশের ৩৪টি জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ৩ জন ঢাকা বিভাগের, ১ জন চট্টগ্রাম বিভাগের এবং ১ জন রংপুর বিভাগের। বাকি পাঁচব বিভাগে কারও মৃত্যু হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত এক দিনে সারা দেশে মোট ১৯ হাজার ৫০৭টি নমুনা পরীা হয়েছে। এ পর্যন্ত পরীা হয়েছে ১ কোটি ৬ লাখ ৭৩ হাজার ৪৩১টি নমুনা। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীা অনুযায়ী শনাক্তের হার ১ দশমিক ২৫ শতাংশ, যা আগেরদিন ১ দশমিক ৩৫ শতাংশ ছিল। এ পর্যন্ত নমুনা পরীা অনুযায়ী শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ৭৪ শতাংশ। শনাক্ত অনুযায়ী মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭৮ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের ৫ জনই পুরুষ। তাদের এক জনের বয়স ছিল ৭০ বছরের বেশি, তিনজনের বয়স ছিল ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে। আর একজনের বয়স ৩১ থেকে ৪১ বছরের মধ্যে ছিল। তাদের সবাই সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে। বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়েছিল গত বছরের ৮ মার্চ। গত ৩১ অগাস্ট তা ১৫ লাখ পেরিয়ে যায়। এর আগে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ব্যাপক বিস্তারের মধ্যে ২৮ জুলাই দেশে রেকর্ড ১৬ হাজার ২৩০ জন নতুন রোগী শনাক্ত হয়। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বছর ১৪ সেপ্টেম্বর তা ২৭ হাজার ছাড়িয়ে যায়। তার আগে ৫ অগাস্ট ও ১০ অগাস্ট ২৬৪ জন করে মৃত্যুর খবর আসে, যা মহামারীর মধ্যে এক দিনের সর্বোচ্চ সংখ্যা। বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ইতোমধ্যে ৫১ লাখ ২২ হাজার ছাড়িয়েছে। আর শনাক্ত হয়েছে ২৫ কোটি ৪৯ লাখের বেশি রোগী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here