ভোরের আলো ওঠার আগেই ফসলের মাঠে কৃষক/ বোরো ধান রোপনের প্রস্তুতি নিতে কোঁমর বেঁধে মাঠে নেমেছে রূপদিয়া অঞ্চলের কৃষক

0
61

রাসেল মাহমুদ : যশোর সদরের রূপদিয়া সহ বিভিন্ন অঞ্চলের কৃষকেরা সম্প্রতি হিমশীতল হাওয়া আর গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি উপো করে কোঁমর বেঁধে মাঠে নেমেছে বোরো আবাদ চাষে। এখন বোরো আবাদে ধানের চারা রোপনে উপযুক্ত করতে সেচকাজ, লাঙ্গল ও জমি সমানে করতে ব্যস্ত সময় পার করছে তারা। যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর, রূপদিয়া, হাটবিলা, জিরাট, শাখাঁরীগাতী, বলরামপুর, গোপালপুর, ঘোড়াগাছা ও কচুয়া ইউনিয়নের, মথুরাপুর, মুনসেফপুর, মালিডাঙ্গা, দিয়াপাড়া, ঘুনি, পদ্মবিলা, সহ এতদা অঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকার মাঠজুড়ে এখন বোরো আবাদের কাজে ব্যাপক প্রস্তুতি লণিয়। ভোরের আলো ফুঁটতে না ফুঁটতে কোঁমর বেঁধে ফসলের মাঠ প্রস্তুতের কাজে নেমে পড়ছে অঞ্চলের বোরো ধান চাষিরা। শীতের সকালে বীজতলায় বোনা ধানের চারা পরিচর্যার পাশাপাশি বিভিন্ন জাতের ধান রোপনের জমি প্রস্তুতের কাজ চলছে পুরোদমে। নদীর পাড়, খালের ধার, রাস্তার পাশে জমিতে, বিস্তীর্ণ ফসলের মাঠ জুড়ে এখন শুধু ধানের কোচি চারার সবুজ গালিচা। কোথাও গভীর নলকূপ থেকে চলছে জলসেচ কোথাও দেখা যাচ্ছে ট্রাক্টর, পাওয়ার টিলার, গরু নাঙ্গল ইত্যাদি দিয়ে জমি চাষ দিয়ে ধান চারা রোপণের উপযুক্ত করে তোলার শেষ কাজ। অনেক স্থানে আবার জমি প্রস্তুত শেষে বোরো ধান রোপণের জন্য বীজতলা থেকে তোলা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে ধানের চারা। সদর উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকার মাঠজুড়ে কোথাও কোথাও ইতোমধ্য বোরো আবাদের জন্য কৃষকরা জমি তৈরি করে ধানের চারা রোপণও শেষ করেছে ফেলেছে। নরেন্দ্রপুর ইউনিয়নের জিরাট গ্রামের কৃষক মুন্সী ফারুক হোসেন জানান, প্রায় ৩ একর জমিতে এবার বোরো ধান চাষ করবেন তিনি। এজন্য ৫ কাঠা জমিতে বীজতলা তৈরি করেছিলেন। ইতোমধ্যে তিনি বেশির ভাগ জমিতে চারা রোপনের কাজও সম্পন্ন করে ফেলেছে। গেলো বছর বোরো ফসলে ভালো ফলন হওয়ায় এবারো চাষে উৎসাহ পেয়েছেন। একই ইউনিয়নের হাটবিলা গ্রামের কৃষক জামাল গাজী জানান, প্রায় ৫ একর জমিতে এবার বোরো আবাদ করবেন তিনি। আল্লাহ্ সহায় থাকলে কোন ধরনের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে না পড়লে আশানুরূপ ফসল ফলবে বলে ধারণা করছে। অনেক স্থানের জমিতে এরই মধ্যে রোপনকৃত ধানের চারা বেশ বেড়েও উঠছে, হালকা বাতাসে দোল খাচ্ছে সবুজ পাতার ধান েেত। আর এখনো বেশির ভাগ জমিতে চলছে চারা রোপনের প্রস্তুতি। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কৃষকরা ব্যস্ত সময় পার করছেন এ কাজে। দ্রুত সময়ের মধ্য তে প্রস্তুতিকরণ কাজ সেরে নিতে জমির আইলে বসেই দুপুরের খাবার সেরে নিচ্ছে চাষি গৃহস্থ ও কৃষকরা। শীত ও হিমেল হাওয়া উপো করে বীজতলা থেকে চারা তুলে রোপন করছেন জমিতে। গেল আমন মৌসুমে ধানের ফলন ও দাম ভালো পাওয়ায় বোরো মৌসুমে ধান চাষের প্রতি আগ্রহ বেড়েছে যশোর সদরসহ বিভিন্ন অঞ্চলের কৃষকদের। এই অঞ্চলে আবহাওয়া ও রোগ বালাই কম হওয়ায় প্রতিবছর ধানের উৎপাদন বেশ ভালোই হচ্ছে বলে জানান চাষিরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here