২১ বছর পর ঝিকরগাছা পৌরসভা নির্বাচন আজ

0
76

মালিকুজ্জামান কাকা : দীর্ঘ ২১ বছর পর যশোর ঐতিহ্যবাহী নদ কপোতাক্ষের তীরে অবস্থিত ঝিকরগাছা পৌরসভার ভোট আজ। নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর থেকে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ও ১১ কাউন্সিলর প্রার্থী ছাড়া অন্য সকল প্রার্থী উৎসবমুখর পরিবেশে প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। শুক্রবার প্রচারণার শেষ দিন ছিল। ছয়জন মেয়র প্রার্থী, ৬১ জন কাউন্সিলর প্রার্থী ও ১৮ জন সংরতি মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ও তাদের কর্মী সমর্থকরা এখন অপেক্ষায়। তবে স্বতন্ত্র একজন মেয়র ও ১১ কাউন্সিলর প্রার্থী কিছুটা কৌশলে তাদের প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। স্থানীয় জন প্রতিনিধি নির্বাচনে ভোটাররা চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন। পৌর এলাকার সকল ওয়ার্ডের ভোটাররা বিভিন্ন মতামত প্রকাশ করেছেন। এদের বেশির ভাগ এবারকার ভোটে নতুন ভোটার। জনপ্রতিনিধির প্রত্যাশা করছেন নতুন ভোটাররাই তাদের জয় পরাজয়ের ট্রাম্পকার্ড। সুষ্ঠু ও নিরপে ভোট হলে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী বলে দাবি করেছেন প্রত্যেক মেয়র প্রার্থী। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী মোস্তফা জামাল পাশা। এছাড়া স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী ইমরান হাসান নিপুন (কম্পিউটার প্রতীক), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক এ.কে.এম আমানুল কাদির টুল্লু (নারকেল গাছ প্রতীক), আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ছেলিমুল হক সালাম (জগ প্রতীক), আব্দুল্লাহ আল সাঈদ (রেল ইঞ্জিন প্রতীক) ও ইমতিয়াজ আহমেদ শিপন (মোবাইল ফোন প্রতীক)। ভোটে বিশৃঙ্খলা করার কোনো সুযোগ নেই উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাচন অফিসার অপূর্ব কুমার বিশ^াস জানিয়েছেন, ঝিকরগাছা পৌরসভা নির্বাচন শতভাগ অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপে করতে নয়টি ওয়ার্ডে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জন্য নয়জন ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশসহ পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা রাকারী বাহিনী নিয়োজিত থাকবে। ঝিকরগাছা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ জানান, সুষ্ঠু ভোট গ্রহণের জন্য নয়টি কেন্দ্রে নয় জন পুলিশ ইন্সপেক্টরসহ চার শতাধিক পুলিশ দায়িত্ব পালন করবেন। উল্লেখ্য, ঝিকরগাছা উপজেলা শহরকে ১৯৯৮ সালের ৪ এপ্রিল ৩য় শ্রেণির পৌরসভা হিসাবে ঘোষণা হয়। তার প্রায় তিন বছর পর ২০০১ সালের ৪ এপ্রিল পৌরসভার ১ম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। ২০০১ সালের নির্বাচনের পর বর্তমানে ২১ বছর পেরিয়ে গেলেও ২য় শ্রেণিতে উন্নীত হওয়া পৌরসভার আর কোনো নির্বাচন হয়নি। এছাড়া অপর বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম মুকুল সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যেমে তার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেও ব্যালটে তার (চামচ প্রতীক) থাকবে বলেই জানা গেছে।
ঝিকরগাছা পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ২৫,৯৩৯ জন। এই নির্বাচনে মোট ১৪টি ভোটকেন্দ্রে বুথ রয়েছে ৮৬টি। নৌকার প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোস্তফা আনোয়ার পাশা জামাল বলেন, প্রশাসন এবং আওয়ামী লীগের দলীয় নেতাকর্মী একযোগে সুষ্ঠু নির্বাচনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের এই কার্যক্রমে আমি ব্যক্তিগতভাবে খুশি। ঝিকরগাছা পৌরবাসী স্বতঃস্ফুর্তভাবে বর্তমান সরকারের সামগ্রিক উন্নয়নের কথা ভেবে আমাকে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবে বলে আমি আশাবাদি। কম্পিউটার প্রতীকের প্রার্থী ঝিকরগাছা উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ইমরান সামাদ নিপুন বলেন, ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে আটটি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের নাম উল্লেখ করে তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও পুলিশ বিভাগের কাছে লিখিত আবেদন জানিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করেন, ভোটের মাঠছাড়া করতে তার নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে, পুলিশি তল্লাশির নামে হয়রানি করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here