বাঘারপাড়া ডিগ্রী কলজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মার্কশিট ও প্রশংসা পত্র প্রদানের ক্ষেত্রে অর্থ বাণিজ্যর অভিযাগ

0
23

স্টাফ রিপোর্টারঃ যশোরের বাঘারপাড়া ডিগ্রি কলেজ কতৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রশংসা পত্র দেওয়ার সময় মার্কশীট ও প্রশংসাপত্র আটকে রেখে ৫শত টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
শিক্ষার্থীরা টাকা জমা না দিলে প্রশংসা পত্র ও মার্কশীট আটকে রেখে হয়রানি করছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। ওই কলেজের বহু সসংখ্যক শিক্ষার্থীরা এ বিষয়ে অভিযোগ জানিয়েও কোন ফল পাচ্ছে না।
এ বিষয় শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট।
জানা গেছে, বাঘারপাড়া ডিগ্রি কলজের উচ্চ মাধ্যমিক ও ডিগ্রী পাস প্রত্যেক শিক্ষার্থীর প্রশংসা পত্র বাবদ ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। টাকা না দিলে দেয়া হচ্ছে না প্রশংসা পত্র। ফলে বাধ্য হয়ে টাকা দিয়ে প্রশংসা পত্র নিতে হচ্ছে । এরকম বিভিন্ন সময় অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে।
গত বছরের ৯ সেপ্টম্বর বিভিন্ন পত্রিকায় এই কলজের বিরুদ্ধে ‘অ্যাসাইনমেন্টের নামে বাণিজ্য’ শীরানামে লক্ষাধিক টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগের সংবাদ প্রকাশিত হয়। সংবাদ প্রকাশর পর টাকা নেয়া বন্ধ হলেও শিক্ষার্থীদের সাথে অসদাচরণ করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
সুমন পারভেজ, হুসাইন রাজা, ইকলাচ হোসেন, আকাশ হোসেন, শরিফ হোসেন, আহাদ, ইকলাজ, খায়রুল, রিয়াদ হোসেন, নাহিদ হোসেন, মাজেদুল ইসলাম সহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীর সাথে এ বিষয়ে কথা হয়। তাঁরা জানায়, অনার্স শ্রেণীরতে ভর্তি হওয়ার জন্য মার্কশিট ও প্রশংসা পত্রের প্রয়োজন। কিন্তু প্রশংসা পত্র নিতে গেলে কলেজ কর্তৃপক্ষ ৫০০ টাকা দাবি করছে। এটা নাকি কলেজের গভর্নিং বার্ডি কর্তৃক নির্ধারণ করা হয়েছে।
এ বিষয়ে বক্তব্য জানার জন্য অধ্যক্ষ আব্দুল মতিনের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি রাজিব কুমার রায় জানান , গভার্নিং বোর্ডে প্রশংসা পত্র বাবদ পাঁচশত টাকা নেওয়ার কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি । বিষয়টি আমি দেখছি।
উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা আ ন ম আবুজর গিফারী জানান, অভিযোগ পেয়েছি, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। সত্যতা পেলে প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here