নড়াইলে ভুয়া আইডি ব্যাহার করে ৪ কোটি টাকার জমি লিখে নেওয়ার অভিযোগ

0
34

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলে দলিল লেখক আরমানের নেতৃত্বে ভুয়া আইডি ব্যাহার করে ৪ কোটি টাকার জমি লিখে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে । জমির প্রকৃত মালিক ১৯৭১ সাল থেকে ভারতে স্থায়ী ভাবে বসবাস করছেন। পৈতৃক সূত্রে পাওয়া প্রায় ৪ কোটি টাকার সম্পত্তি বিক্রি হয়ে গিয়েছে অথচ তিনি নিজেই জানেন না। ভুয়া আইডি কার্ড তৈরী ও দাতা সাজিয়ে ভওয়াখালী ও দূর্গাপুর-ডুমুরতলা মৌজার ৪ কোটি টাকার সেই জমি লিখে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে দলিল লেখক ভূমিদস্যু আরমান খান, তার আপন ভাই এবং দুলাল চন্দ্র সিংহসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে।
বিষয়টি নিয়ে দূর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন এলাকার সচেতন মহল। চাঞ্চল্যকর এই বিষয়টি জানাজানি হলে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। দ্রুত বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যাবস্থা নেওয়ার দাবী জানিয়েছেন এলাকাবাসী।
এদিকে, দলিল লেখক আরমান দলিলের শ্রেণী পরিবর্তনসহ নানা অনিয়ম দূর্নীতি করে সল্প সময়ে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ইতোমধ্যে দূর্নীতির দায়ে ভিন্ন একটি অভিযোগেও তদন্ত চলছে আরমানের বিরুদ্ধে।
জানা গেছে, আরমানসহ কয়েকজ যোগসাজসে ভূয়া দাতা সাজিয়ে ২৭-৬-২০১২ ইং তারিখে নড়াইল সাব রেষ্ট্রি অফিসে ৩৯৪৯ নং আম-মোক্তারমানা দলিল করে নেন। দলিলটিতে দাতাদের যে আইডি কার্ড (আডি নং ৬৫২৭৬০৪১০৬৮৯০ এবং ৬৫২৭৬০৪১০৬৮৯০৪ ) ব্যাবহার করা হয়েছে আদের সেই আইডি কার্ড দলিলের দাতাদের নয়। জমির প্রকৃত মালিক ১৯৭১ সাল থেকে ভারতে স্থায়ী ভাবে বসবাস করছেন। বাংলাদেশে তাদের কোন পরিচয় পত্র (নাগরিকত্ব নেই) । দলিলটি লেখক কলমে আরমানের আপন ভাই আনারুল ইসলাম খান স্বাক্ষর করেছেন।
৩৯৪৯ নং আম-মোক্তারমানা দলিলের গ্রহিতা দুলাল চন্দ্র সিংহ এর সাথে কথা হলে তিনি নিউজ না করার জন্য অনুরোধ করেন।
সাব রেজিষ্ট্রি অফিস সুত্রে জানাগেছে, ৬-৬-২০১৮ ইং তারিখে ২৪৪৩ নং কবলা দলিলের শ্রেণী পরিবর্তন করে প্রায় দুই লক্ষ টাকা রাজেস্ব ফাঁকি দেওয়া হয়েছে। এই দলিলের দাতা এই আরমান নিজেই। অভিযোগ রয়েছে উক্ত দলিলের লেখক কলমে নকল (লেখকের অজান্তে) সহি করানো হয়েছে।
এলাকাবাসী ও রেজিষ্ট্রি অফিস সংশ্লিষ্ঠরা জানান, নাশকতা মামলার আসামী বিএনপি নেতা আরমান ভূমি দস্যূ হিসাবে পরিচিত হয়েছে অনেক আগেই। দরিদ্র পরিবারে সন্তান ভূমি খেকো আরমান বিভিন্ন সময়ে দলিলের শ্রেণী পরিবর্তনসহ বিভিন্ন অনিয়ম করে সল্প সময়ে কোটি টাকার মালিক হয়েছেন বলে তাদের অভিযোগ।
সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে দূর্গাপুর এলাকায় তিনতলা বিশিষ্ট বিলাসবহুল একটি বহুতল ভবন নির্মান সহ আশেপাশে কোটি টাকার জমি ক্রয় করেছেন বলে অভিযোগ এই আরমানের বিরুদ্ধে।
নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক দলিল লেখক জানান, আরমান যখন লেখক সমিতি সম্পাদক ছিলেন মূলত তখনই বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতি করে রাতারাতি কোটিপতি হয়েছেন।
এলাকার এক আওয়ামীলীগ নেতা জানান, আরমানের আসল রুপ বিএনপি হলেও বর্তমানে সে সরকার দলীয় এক প্রভাবশালী নেতার ছত্র ছায়ায় থেকে বিভিন্ন অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে।
অভিযুক্ত দলিল লেখক আরমানে সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসব অস্বীকার করে বলেন , এরাকম কোন দলিল আমি রেজিস্ট্রি করি নাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here