যশোরে বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ

0
16

যশোর অফিস : যশোরে বিএনপির খুলনা বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেছেন, বর্তমান ফ্যাসিস্ট সরকার বেগম খালেদা জিয়াকে নয়, গণতন্ত্রকে কারাবন্দি করে রেখেছে। আমরা বেগম খালেদা জিয়াকে নয় গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য আন্দোলন করছি। সেই আন্দোলন করতে গিয়ে সম্প্রতি সময়ে আমাদের কয়েকজন সহযোদ্ধাকে নির্মম জীবন দিতে হয়েছে। অসংখ্য সহযোদ্ধা কারাবন্দী হয়েছেন। অনেকে পঙ্গত্ববরণ করেছেন। তারপরও আমরা আন্দোলন করছি,আন্দোলন চলবে। প্রয়োজনে আমি নিজেও জীবন দিতে প্রস্তুত আছি। যতক্ষণ না পর্যন্ত দেশে গণতন্ত্রের নতুন সুর্যোদয় না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা লড়াইয়ে মাঠ ছেড়ে যাব না। বিএনপি ঘোষিত ১০ দফা বাস্তবায়ন এবং বিদ্যুতের মূল্য কমানোর দাবিতে গতকাল সোমবার কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে যশোর নগর ও সদর উপজেলা বিএনপি যৌথ আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অথিতির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন। জেলা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে নগরের নয়টি ওয়ার্ডসহ সদর উপজেলার ১৫টি ইউনিয়ন বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিল সহকারে সমাবেশে যোগ দেন। বিক্ষোভ সমাবেশে অনিন্দ্য ইসলাম অমিত আরও বলেন, ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা লুটপাট করতে করতে সমৃদ্ধির বাংলাদেশকে আবার স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ের সেই তলাবিহীন ঝুড়িতে নিয়ে গেছে। সামান্য ৪৫০ কোটি ডলারের জন্য আইএফএম’র দারস্থ হতে হচ্ছে। স্বাধীনতার ৫১ বছর পর এসে জনগণকে কেবল মাত্র দুবেলা মোটা ভাতের জন্য যুদ্ধ করতে হচ্ছে। প্রান্তিক জনগণগোষ্ঠীকে তাদের চিকিৎসা সেবা প্রাপ্তির জন্য যুদ্ধ করছে । সার,ডিজেল, বিদ্যুতসহ অন্যান্য উপকরণের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির কারণে কৃষকের উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধের উপক্রম হচ্ছে। এই হচ্ছে আওয়ামীলীগের গত এক যুগের অধিক সময়ের উন্নয়নের চিত্র। আজকে তারা পদ্মা সেতু নিয়ে গর্ব করে এই সেতু নির্মাণ হয়েছে জনগণের টাকায় তাদের ভ্যানেটি ব্যাগের টাকায় নয়। অথচ তারা দেশ থেকে যে পরিমাণ অর্থ লোপাট করে বিদেশে পাচার করেছে তা দিয়ে অসংখ্যা পদ্মা সেতু করা যেত। বর্তমান ফ্যাসিস্ট সরকার রাষ্ট্রের সকল স্তম্ভ ধ্বংস করে দিয়ে রাষ্ট্রকে একটি খেলো ঘরে দাঁড় করিয়ে রেখেছে। তারা দেশটাকে জনগণের নয় নিজেদের সম্পত্তি মনে করে। তাই বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান রাষ্ট্র মেরামতের জন্য ২৭ টি রূপরেখো দিয়েছেন। তিনি বলেন, চলমান ফ্যাসিবাদ বিরোধী আন্দোলন চূড়ান্ত গতি পথে পৌঁছে গেছে। আওয়ামীলীগের হোন্ডা গোন্ডারা কে কি বললো আমাদের ভাবনার সময় নেই। আমাদের ভাবনা দেশ ও জনগণ নিয়ে। দেশের সমগ্র জনগণ নতুন সুর্যোদয়ের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ উদ্যাপনের প্রতিক্ষায়। যতক্ষণ না পর্যন্ত জনগণের কাঙ্খিত সেই প্রতিক্ষা পূরণ না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমরা রাজপথে আছি রাজপথে থাকবো গণতন্ত্রের নতুন সূর্যোদয় করে ঘরে ফিরবো ইনশাল্লাহ। নগর বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম চৌধুরী মুল্লুক চাঁদের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন, সদস্য কাজী আজম, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এহসানুল হক সেতু, সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আঞ্জুরুল হক খোকন, বিএনপি নেতা আব্দার হোসেন, ফারুখ হোসেন, মাষ্টার মিজানুর রহমান, নুরুজ্জামান খান, জাকির হোসেন, মারুফুজ্জামান কা ন,আব্দুর রাজ্জাক,সদর উপজেলা মহিলাদলের সভানেত্রী হাসিনা ইউসুফ, নগর যুবদলের সদস্য সচিব শেখ রবিউল ইসলাম রবি,সদর উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক তানভীর রায়হান তুহিন, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা শফিকুল ইসলাম, সাইফুল বাশার সুজন, ছাত্রদল নেতা সুমন আহমেদ,আলমগীর হোসেন লিটন প্রমুখ। বিক্ষোভ সমাবেশ পরিচালনা করেন নগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামান মাসুম ও সদর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here